National UniversityRelease Slip

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় রিলিজ স্লিপ সংক্রান্ত প্রশ্নোত্তর

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় রিলিজ স্লিপ সংক্রান্ত প্রশ্নোত্তর

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় রিলিজ স্লিপ সংক্রান্ত প্রশ্নোত্তর | জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের রিলিজ স্লিপ নিয়ে অনেকেরই প্রশ্ন রয়েছে। আজ আমরা রিলিজ স্লিপ সম্পর্কে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেব। ধৈর্য সহকারে পুরো নিবন্ধটি পড়ুন। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ভর্তি ২০২১ রিলিজ স্লিপের আবেদন শুরু হলে কিউএনএ বাংলা তা বিজ্ঞপ্তিসহ প্রকাশ করবে। আমাদের আর্টিকেল ফলো করে আপনি খুব সহজেই রিলিজ স্লিপে আবেদন করতে পারবেন।

‘রিলিজ স্লিপ’ হচ্ছে, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য প্রথম পর্যায়ে আসন না পেয়ে পরবর্তীতে ভর্তির জন্য একটি বিশেষায়িত পদ্ধতি। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স থেকে শুরু করে ডিগ্রী, মাস্টার্স ভর্তিতে ‘রিলিজ স্লিপ’ পদ্ধতি বিদ্যমান রয়েছে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদন করে যারা ১ম ও ২য় মেধাতালিকায় চান্স পাবে না, তারা আবার ৫টি কলেজে আবেদন করার সুযোগ পায়, আর এই আবেদনকে রিলিজ স্লিপে আবেদন বলে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় রিলিজ স্লিপ ২০২০-২১ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে। ১ম রিলিজ স্লিপে আবেদন শুরু হবে, ১৮ই অক্টোবর ২০২১ তারিখে আবেদন গ্রহণ চলবে ৩১শে অক্টোবর ২০২১ পর্যন্ত। হাতে সময় পাবেন মোট ১৩ দিন।

READ ALSO: NU 2nd Merit Migration And Quota Merit List

  • রিলিজ স্লিপ বলতে, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ভর্তির ১ম মেধা তালিকা ও ২য় মেধা তালিকা এবং কোটায় যারা চান্স পায়নি অথবা চান্স পেয়েও ভর্তি হয়নি, তাদেরকে পুনরায় সর্বোচ্চ পাঁচটি কলেজে আবেদনের মাধ্যমে ভর্তির পদ্ধতিকে বোঝায়।

    রিলিজ স্লিপ আবেদন ২ প্রকার।
    ∎ ১ম রিলিজ স্লিপ,
    ∎ ২য় রিলিজ স্লিপ।

    যে সকল শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবেন।
    ∎ পয়েন্ট দ্বারা চান্স পায়নি। অর্থাৎ, ১ম ও ২য় মেধা তালিকায় যারা স্থান পায় নি।
    ∎ ভর্তি বাতিল করেছে।
    ∎ যারা প্রাপ্ত বিষয়ে পড়তে ইচ্ছুক নয় তারাও রিলিজ স্লিপ এর মাধ্যমে অন্য কলেজে ভর্তির আবেদন করতে পারবেন।

  • না। প্রাথমিক আবেদন না করে থাকলে রিলিজ স্লিপে আবেদন করা যাবে না।

    প্রাথমিক আবেদন করার পর কলেজ কর্তৃক নিশ্চায়ন না হলেও রিলিজ স্লিপে অ্যাপ্লাই করতে পারবেন না।

  • হ্যাঁ আবেদন করতে পারবেন। আসন খালি থাকা সাপেক্ষে আপনি আগের কলেজসহ মোট পাঁচটি কলেজে নতুন করে বিষয় নির্বাচন করে আবেদন করতে পারবেন।

  • হ্যাঁ করা যাবে। আপনার পছন্দ অনুযায়ী বাংলাদেশের যে কোন সরকারি বা বেসরকারি পাঁচটি কলেজ নির্বাচন করতে পারবেন।

    আপনি চাইলে একটি কলেজেও আবেদন করতে পারবেন। এমনটা না করাই শ্রেয়। কারণ, এমনিতেই আগে চান্স পান নাই। এখন আপনার উচিত সর্বোচ্চ সংখ্যক কলেজ সিলেক্ট করা।

  • না, মাইগ্রেশন করা যাবে না। রিলিজ স্লিপে যে বিষয় আসবে, সে বিষয় নিয়েই পড়তে হবে।

    শুধুমাত্র ১ম ও ২য় মেধাতালিকার ক্ষেত্রে মাইগ্রেশন অন করা যায়।

  • ১ম রিলিজ স্লিপে ভর্তি সম্পন্ন হওয়ার পর আসন শূন্য সাপেক্ষে ২য় রিলিজ স্লিপে আবেদন গ্রহণ করা হয়। তাই ১ম রিলিজ স্লিপে সুযোগ না পেলে আবার ২য় রিলিজ স্লিপে আবার ৫টি কলেজে আবেদন করবেন। ২য় রিলিজ স্লিপের আবেদন প্রক্রিয়া হুবুহু ১ম রিলিজ স্লিপের মতোই।

  • যখন কোন আবেদনকারী প্রথম বা দ্বিতীয় মেধা তালিকায় আসন পাবে না অথবা আসন পেয়েও ভর্তি হবে না বা ভর্তি বাতিল করেছে তারা অনলাইনে রিলিজ স্লিপে আবেদন করতে পারবে।

  • বিগত কয়েক বছরের পর্যালোচনায় দেখা যায় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় সচারাচর দুটি রিলিজ স্লিপ প্রকাশ করে থাকে। যথাঃ প্রথম রিলিজ স্লিপ এবং দ্বিতীয় রিলিজ স্লিপ।

  • রিলিজ স্লিপে আবেদন করতে হলে আপনাকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের এডমিশন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে রোল ও পিন দিয়ে লগিন করে আবেদন করতে হবে। আবেদন করতে এখানে https://www.nu.ac.bd/admissions/ লিংকে প্রবেশ করুন।

    • ১ম ও ২য় মেধা তালিকায় স্থান পায়নি;
    • ১ম বা ২য় মেধা তালিকায় স্থান পেয়েও ভর্তি হয়নি;
    • মেধা তালিকায় ভর্তি হয়ে পরবর্তীতে ভর্তি বাতিল করবে,তারা রিলিজ স্লিপে আবেদন করার সুযোগ পাবেন।

  • না! করা যাবে না। নোটিশে কারণ দর্শানো আছে। দেখে নিতে পারেন।

  • যারা অনার্সে ভর্তি আবেদন করেনি বা আবেদন করে টাকা পরিশোধ করে পরবর্তী নিয়ম অনুসরণ করেনি তারা রিলিজ স্লিপে আবেদন করতে পারবেন না। এছাড়া, কলেজ কর্তৃক যে সকল আবেদনকারীর প্রাথমিক আবেদন নিশ্চয়ন করা হবে না, সে সকল আবেদনকারী রিলিজ স্লিপে আবেদন করতে পারবে না।

  • হ্যাঁ, আসন খালি থাকা সাপেক্ষে পূর্বের কলেজে পুনরায় আবেদন করতে পারবে।

  • আবেদনকারী রিলিজ স্লিপে আবেদন করার সময় কলেজ বাছাই করার পর বিষয় নির্বাচনের সময় খালি আসন সংখ্যাগুলো দেখতে পারবেন।

  • সরকারি বা বেসরকারি যেকোনো ধরণের কলেজে আবেদন করা যাবে।

  • সর্বোচ্চ ৫টি কলেজে আবেদন করা যাবে।

  • না, রিলিজ স্লিপে কোনো প্রকার কাগজপত্র জমা বা ফি দিতে হবে না। তবে, পরবর্তীতে ভর্তির সময় প্রয়োজন হবে।

  • রিলিজ স্লিপের আবেদনে যেকোনো ধরণের ভুল হলে, শুধুমাত্র একবারই সংশোধন করা যাবে।

  • রিলিজ স্লিপের জন্য জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে শতকরা ৫ বা ১০ শতাংশ আসন খালি থাকে। তাই, নোটিশ দেওয়ার পরপরই আবেদন করে ফেলাই উত্তম।

  • কোনো কলেজে ভর্তি হতে, ১ম ও ২য় মেধা তালিকার মত রিলিজ স্লিপেও একই টাকা লাগবে। এক্ষেত্রে আপনার ভর্তিচ্ছু কলেজের নোটিশ দেখতে হবে।

  • আবেদন পদ্ধতি উপরে ছবিসহ বর্ণনা করা আছে। রিলিজ স্লিপে আবেদনের জন্য আবেদনকারীকে ভর্তি বিষয়ক ওয়েবসাইটের (www.nu.ac.bd/admissions) Applicant Login অপশনে Honours Login লিংকে গিয়ে ভর্তি রোল নম্বর ও পিন এন্ট্রি দিতে হবে। এক্ষেত্রে আবেদনকারীর নাম ও অন্যান্য তথ্যসহ রিলিজ স্লিপের আবেদন ফরম ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত হবে।

  • রিলিজ স্লিপে আবেদনের জন্য College Selection অপশনে গিয়ে আবেদনকারী তার পছন্দ অনুযায়ী কলেজ Select করলে ঐ কলেজের বিষয়ভিত্তিক শূন্য আসনের তালিকা ও তার Eligible বিষয়ের তালিকা দেখতে পাবে। এ পর্যায়ে আবেদনকারী তার Eligible বিষয়ের তালিকা থেকে নতুন করে পছন্দক্রম নির্ধারণ করে এন্ট্রি দিবে। এভাবে একজন আবেদনকারী তার পছন্দ অনুযায়ী মোট পাঁচটি কলেজে পর্যায়ক্রমে বিষয় পছন্দক্রম নির্ধারণ করে রিলিজ স্লিপের আবেদন ফরম পূরণ করবে।

  • সঠিক তথ্য দিয়ে ফরম পূরণ করে Submit Application অপশনে ক্লিক করলে আবেদনকারী তার নাম, প্রাথমিক আবেদনের রোল নম্বর কলেজের নাম ও বিষয় পছন্দক্রমসহ একটি নতুন আবেদন ফরম ওয়েবসাইটে দেখতে পাবে। উক্ত ফরমটি PDF আকারে Download করে A4 সাইজের (8.5×11”) অফসেট পেপারে প্রিন্ট করে রাখতে হবে। তবে এটি আবেদন ফরমে উল্লিখিত কলেজসমূহে জমা দিতে হবে না বা কোন ফি প্রদান করতে হবে না।

  • রিলিজ স্লিপের আবেদন ফরম চূড়ান্তকরণের পরেও কোন আবেদনকারী তার আবেদন ফরমে কলেজ/বিষয়ের পছন্দক্রম সংশোধন বা পরিবর্তন করতে ইচ্ছুক হলে তাকে Applicant Login অপশনে Honours Login লিংকে গিয়ে ভর্তি রোল নম্বর ও পিন এন্ট্রি দিতে হবে। এ পর্যায়ে আবেদনকারীকে Cancel Release Slip অপশনে গিয়ে Click to Generate the Security key ক্লিক করতে হবে। এ সময়ে আবেদনকারী তার আবেদন ফরমে উল্লিখিত ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বরে SMS এর মাধ্যমে One Time Password (OTP) পাবে। এই OTP এন্ট্রি দিয়ে আবেদনকারী তার আবেদন ফরমটি বাতিলপূর্বক নতুন করে রিলিজ স্লিপের আবেদন ফরম পূরণ করতে পারবে। আবেদনকারী এ সুযোগ কেবল একবারই পাবে।

  • আবেদন গ্রহণ শেষ হলে,রিলিজ স্লিপের ফলাফল নির্ধারিত সময়ে প্রকাশ করা হবে। রিলিজ স্লিপের মেধা তালিকায় স্থানপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের বিষয় পরিবর্তনের কোন সুযোগ থাকবে না।

  • আবেদনকারী রিলিজ স্লিপের মাধ্যমে তার নির্বাচিত কলেজে বিষয় বরাদ্দ পেলে ওয়েবসাইটের (www.nu.ac.bd/admissions) Honours Applicant’s Login অপশনে গিয়ে ভর্তির আবেদন ফরম প্রিন্ট/PDF কপি সংগ্রহ করবে। এছাড়া আবেদনকারীকে রেজিস্ট্রেশন ফি বাবদ ৪৮৫/- (চারশত পঁচাশি) টাকা সংশ্লিষ্ট কলেজ কর্তৃক নির্ধারিত মোবাইল ব্যাকিং এর মাধ্যমে জমা দিতে হবে। সংশ্লিষ্ট কলেজ যে সকল শিক্ষার্থীর রিলিজ স্লিপের চূড়ান্ত ভর্তি অনলাইনে নিশ্চয়ন করবে সে সকল শিক্ষার্থীকে SMS এর মাধ্যমে তা জানিয়ে দেয়া হবে।

রিলিজ স্লিপে ভর্তি সংক্রান্ত আরো প্রশ্ন থাকলে এই আর্টিকেলের শেষে কমেন্ট করতে পারেন। আমরা আপনার প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো!

আরো পড়ুন:

স্বীকারোক্তি:

এই ওয়েবসাইটে উপস্থাপিত তথ্যসমূহ নিজম্ব আর্টিকেল তৈরির পাশাপাশি ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত। নিবন্ধ সম্পাদনার সময় আমাদের অগোচরে অনিচ্ছাকৃত ভুল তথ্য থাকতে পারে। ভুল হলে আন্তরিকভাবে ক্ষমাপ্রার্থী এবং ভুল তথ্যের জন্য QnABangla কোনোভাবেই দায়ী নয়। কোনো ভুল পরিলক্ষিত হলে অথবা কোনো আর্টিকেল নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সাথে সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।

ই-মেইল করুন qnabangla.com@gmail.com অথবা, যোগাযোগ করুন বাটনে ক্লিক করুন।

Related Articles

One Comment

  1. ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ভর্তি কার্যক্রমে, যারা ২য় রিলিজ স্লিপে আবেদন করতে পারবে।

    ক) মেধা তালিকায় স্থান পায়নি।
    খ) মেধা তালিকায় স্থান পেয়েও
    ভর্তি হয়নি।
    গ) ভর্তি বাতিল করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker on our website.